এবার থেকে একটিমাত্র পরীক্ষা দিলেই রেল, ব্যাংক ও অন্যান্য চাকরির জন্য আবেদন করা যাবে, অনুমোদন দিলো কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা

নিউজ ডেস্ক: দেশের সমস্ত চাকরিপ্রার্থীদের জন্য বড়োসড়ো সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় সরকার। এবার থেকে রেল, ব্যাংক ও অন্যান্য সরকারি চাকরির জন্য আলাদা আলাদা পরীক্ষা দিতে হবে না চাকরিপ্রার্থীদের। একটি পরীক্ষা দিয়ে বিভিন্ন চাকরিতে আবেদন করা যাবে। এমনই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তে ছাড়পত্র দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।

ব্যাংক, রেল, পোস্ট অফিস, বা স্টাফ সিলেকশন কমিশনের চাকরির জন্য আর আলাদা আলাদা পরীক্ষা দিতে হবে না। কেন্দ্রীয় সরকারের সমস্ত নন-গেজেটেড পোস্টে নিয়োগের জন্য নতুন একটি এজেন্সি তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। সংশ্লিষ্ট এজেন্সির অধীনে একটি মাত্র পরীক্ষার মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন চাকরিতে আবেদন করা যাবে।

কেন্দ্রীয় সরকারের সমস্ত নন-গেজেটেড পোস্টে চাকরির জন্য ন্যাশনাল রিক্রুটমেন্ট এজেন্সি (NRA) তৈরি করা হয়েছে। ন্যাশনাল রিক্রুটমেন্ট এজেন্সির মাধ্যমে একটি অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়া হবে, যার নাম হলো কমন এলিজিবিলিটি টেস্ট (Common Eligibility Test) বা  CET. এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে কেন্দ্রীয় সরকারের সমস্ত নন-গেজেটেড চাকরির জন্য আবেদন করা যাবে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং জানিয়েছেন, এই কমন এলিজিবিলিটি টেস্ট পরীক্ষার মেরিট লিস্টের মেয়াদ থাকবে তিন বছর। অর্থাৎ একবার পরীক্ষা দিয়ে পাশ করলে পরবর্তী তিন বছর পর্যন্ত বিভিন্ন পোস্টে চাকরির জন্য আবেদন করা যাবে। আলাদা আলাদা আর পরীক্ষা দিতে হবে না। সূত্রের খবর, আগামী বছর থেকেই এই অভিন্ন পরীক্ষা পদ্ধতি চালু করবে কেন্দ্রীয় সরকার।

যেমন- আগে ব্যাংকে চাকরির জন্য IBPS পরীক্ষা দিতে হতো, রেলে চাকরির জন্য রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ড- এর অধীনে পরীক্ষা দিতে হতো, বিভিন্ন সরকারি অফিসে চাকরির জন্য স্টাফ সিলেকশন কমিশনের পরীক্ষা দিতে হতো, অর্থাৎ আলাদা আলাদা দপ্তরে চাকরির জন্য আলাদা আলাদা পরীক্ষা দিতে হতো। কিন্তু এবার থেকে একটি মাত্র পরীক্ষা দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সমস্ত নন-গেজেটেড পোস্টে চাকরির জন্য আবেদন করা যাবে।

এর ফলে চাকরিপ্রার্থীদের হয়রানি কমবে, আলাদা আলাদা পরীক্ষার জন্য টাকা খরচ করে ফর্ম ফিলাপ করতে হবে না। একটিমাত্র ফর্ম ফিলাপ করলে সমস্ত চাকরির জন্য আবেদন করা যাবে। এবং চাকরিপ্রার্থীদের প্রস্তুতির ক্ষেত্রেও সুবিধা হবে।