২০১৪ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগেও দুর্নীতি! মামলা হলো কলকাতা হাইকোর্টে

২০১৪ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগেও দুর্নীতি

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের দুর্নীতি নিয়ে হাইকোর্টে একটা বড় ধাক্কা খেলো রাজ্য। এদিন হাইকোর্টে প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগের জনস্বার্থ মামলায় রাজ্যের আবেদন খারিজ করল কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। আগামী এক মাসের মধ্যে রাজ্যকে হলফনামা জমা দেওয়ার আদেশ দিলো এই বেঞ্চ।

জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন এক রাজনৈতিক নেতা তাপস ঘোষ। ২০১৪ সালের প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগে কেন মেধাতালিকা প্রকাশ করা হয়নি, নাকি টাকার কারসাজিতে ভিতরে ভিতরে সব কিছু করা হয়েছে, এইসব তথ্য উৎঘাটনে গোয়েন্দা সংস্থা ইডি ও সিবিআইকে দিয়ে তদন্তের আর্জি জানিয়েছিলেন মামলাকারী নেতা।

চাকরির খবরঃ মাধ্যমিক পাশে সেরা ৫ টি চাকরি

কিন্তু এদিন হাইকোর্টে রাজ্যের তরফে বক্তব্য ছিল, এত বছর পর এই বিষয়টি নিয়ে জনস্বার্থ মামলা করায় তা গ্রহণযোগ্য নয়। মামলাটিকে খারিজ করার আবেদন জানায় রাজ্য। কিন্তু রাজ্যের এই আবেদনই খারিজ হয়ে যায় কোর্টে। প্রধান বিচারপতি বলেন, মামলাটির বিপুল গ্ৰহণ যোগ্যতা রয়েছে এবং আরও বলেন, আগামী ১৬ আগস্ট, ২০২২ -এ এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে। এবং মামলাকারীদের প্রশ্নের সদুত্তর পেতেই রাজ্যকে হলফনামা জমা দিতে বলা হয়েছে। সবমিলিয়ে ২০১৪ সালের প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগেও দুর্নীতির গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।