2500 শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি, আবেদন পদ্ধতি দেখে নিন

কেন্দ্রীয় সরকারের আর্মি পাবলিক স্কুলে 2500 শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। নিয়োগ করা হবে ভারতবর্ষের মোট 137 টি আর্মি পাবলিক স্কুলে। এটি একটি কেন্দ্রীয় সরকারের চাকরি। যেকোন ভারতীয় নাগরিক এই শিক্ষক পদের জন্য আবেদন করতে পারবেন।পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন শহরে পরীক্ষার সেন্টার রয়েছে। যেমন- ব্যারাকপুর, দুর্গাপুর, কলকাতা ও শিলিগুড়ি।

শিক্ষক নিয়োগ করা হবে- পিজিটি (পোস্ট গ্রাজুয়েট টিচার), টিজিটি (ট্রেন্ড গ্রাজুয়েট টিচার), পিআরটি (প্রাইমারি টিচার) পদে।

পিজিটি, পিআরটি ও টিজিটি শিক্ষক মোট  17 টি বিষয়ে নিয়োগ করা হবে, যেমন- ইংরেজি, হিন্দি, সংস্কৃত, ইতিহাস, ভূগোল, ‌ ইকোনমিক্স, গণিত, পদার্থবিদ্যা, রসায়নবিদ্যা, জীববিদ্যা, বায়োটেকনোলজি, সাইকোলজি, কমার্স, কম্পিউটার সায়েন্স, হোম সাইন্স, ফিজিক্যাল এডুকেশন। 

উপরোক্ত বিষয়গুলি প্রতিটি বিষয়েই পিজিটি টিচার নিয়োগ করা হবে। কিন্তু টিজিটি শিক্ষকের ক্ষেত্রে ইকোনমিক্স, বায়োটেকনোলজি, সাইকোলজি, কমার্স এবং হোম সাইন্স ছাড়া আর সকল বিষয়ে নিয়োগ করা হবে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা-

পিজিটি টিচার- অন্তত 50 শতাংশ নম্বর সহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পোস্ট গ্রাজুয়েশন ডিগ্রি। সঙ্গে বি.এড বাধ্যতামূলক। বি.এড কোর্সে অন্তত 50 শতাংশ নম্বর থাকতে হবে।

টিজিটি টিচার- সংশ্লিষ্ট বিষয়ে অন্তত 50 শতাংশ নম্বর সহ গ্রাজুয়েশন পাশ। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে গ্রাজুয়েশনে 50% নম্বর না থাকলে, পোস্ট গ্রাজুয়েশনে যদি সংশ্লিষ্ট বিষয়ে 50% নম্বর থাকে  সে ক্ষেত্রে আবেদন করা যাবে। সঙ্গে অন্তত 50 শতাংশ নম্বর সহ বি.এড।

পিআরটি বা প্রাইমারি টিচার- অন্তত 50 শতাংশ নম্বর সহ যেকোনো বিষয়ে গ্রাজুয়েশন পাশ। সঙ্গে 50 শতাংশ নম্বর সহ বি.এড বা ডি.এল.এড কোর্স পাশ হতে হবে।

বয়স- সর্বোচ্চ 40 বছরের মধ্যে। বয়স হিসাব করবেন 1 এপ্রিল 2021 তারিখের হিসেবে। সংরক্ষিত শ্রেণীর প্রার্থীরা সরকারি নিয়ম অনুযায়ী বয়সে ছাড় পাবেন।

আবেদন পদ্ধতি- আবেদন করতে হবে সরাসরি অনলাইনে। আর্মি পাবলিক স্কুল -এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন করতে হবে। আবেদনকারীর একটি বৈধ মোবাইল নম্বর এবং একটি ইমেইল আইডি থাকতে হবে।

আবেদন ফি- সমস্ত প্রার্থীদের ক্ষেত্রে আবেদন ফি 500 টাকা। অনলাইনে আবেদন ফি জমা করা যাবে।

আরও পড়ুন -  সেপ্টেম্বর মাসের সমস্ত চাকরির খবর, প্রথমে দেখুন তারপরে আবেদন করুন

আবেদন করা যাবে- 1 অক্টোবর থেকে 20 অক্টোবর 2020 বিকেল 5 টা পর্যন্ত।

নিয়োগ পদ্ধতি- তিনটি ধাপে নিয়োগ করা হবে। প্রথমে হবে স্ক্রিনিং টেস্ট। প্রথম ধাপের পরীক্ষা নেওয়া হবে অনলাইনে। প্রথম ধাপের পরীক্ষা হবে 21 এবং 22 নভেম্বর, 2020. প্রথম ধাপের পরীক্ষার জন্য এডমিট কার্ড প্রকাশিত হবে 4 নভেম্বর, 2020. প্রথম ধাপের স্ক্রিনিং টেস্ট এর ফলাফল প্রকাশিত হবে 2 ডিসেম্বর, 2020 (Tentative). প্রথম ধাপে পাশ করলে তারপরে রয়েছে ইন্টারভিউ। ইন্টারভিউ এর পরের ধাপ শিক্ষকতার দক্ষতা এবং কম্পিউটার দক্ষতা যাচাইয়ের পরীক্ষা।

পরীক্ষার সিলেবাস-

পিজিটি ও টিজিটি টিচার- এই উভয় শিক্ষক পদের ক্ষেত্রে অনলাইন পরীক্ষাটি দুটি পার্টি নেওয়া হবে। পার্ট- A, পার্ট- B. দুটি পার্টে 90 নম্বর করে মোট 180 নম্বরের পরীক্ষা হবে। সময়সীমা 180 মিনিট।

প্রাইমারি টিচার- প্রাইমারি টিচার এর ক্ষেত্রে শুধুমাত্র একটি পার্টের পরীক্ষা হবে। 90 নম্বরের পরীক্ষা। সময়সীমা 90 মিনিট। পরীক্ষার সিলেবাস জানতে নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করে অফিশিয়াল নোটিফিকেশন ডাউনলোড করুন।

নেগেটিভ মার্কিং- নেগেটিভ মার্কিং 1/4. অর্থাৎ প্রতি চারটি প্রশ্নের উত্তর ভুলের জন্য এক নম্বর কেটে নেওয়া হবে।

অফিশিয়াল নোটিফিকেশন ডাউনলোড করুন-

অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করুন- Click here

অনলাইনে আবেদন করুন- Click here

আরও পড়ুন -  কেন্দ্রীয় সরকারের মাল্টি টাস্কিং স্টাফ পদে নিয়োগ