রাজ্যে ২১ হাজার শিক্ষক নিয়োগ, পূজোর আগেই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

রাজ্যে ২১ হাজার শিক্ষক নিয়োগ

রাজ্যের নতুন করে ২১ হাজার শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ। এদিন ১ আগস্ট সোমবার দপ্তরের উচ্চপ্রদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করে আশ্বাস দেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। নিয়োগ গুলোর ক্ষেত্রে কোন আইনি জটিলতা না থাকার কারণে সেগুলো শুরু করা হবে বলে আশাবাদী তিনি। এই শিক্ষক নিয়োগে বিধিতে বড়সড় পরিবর্তন আসছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি, আদালতে হলফনামা জমা দিয়ে রাজ্য সরকার জানিয়েছিল, নবম-দশমে ১৩ হাজার ৮৪২ টি, একাদশ- দ্বাদশে ৫ হাজার ৫২৭ টি ও প্রধান শিক্ষক পদে ২ হাজার ৩২৫ টি শূন্যপদ রয়েছে। সব মিলিয়ে প্রায় ২১ হাজার শূন্যপদ। বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বলেছিলেন, এই নিয়োগ গুলোর ক্ষেত্রে কোনরূপ আইনি জটিলতা নেই, তখন রাজ্য সরকারের সেগুলির নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু কারা উচিত।

চাকরির খবরঃ রাজ্যের জেলা দপ্তরে মহিলা কর্মী নিয়োগ

নতুন নিয়োগ নিয়ে শিক্ষা দপ্তরের উচ্চপ্রদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে একটি বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী। পুজোর আগেই উচ্চ মাধ্যমিক,‌ মাধ্যমিক, উচ্চ প্রাথমিক ও প্রধান শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী। তবে টেট- উত্তীর্ণদের ক্ষেত্রে কী হবে? তা স্পষ্ট করেননি তিনি। শুধু জানিয়েছেন আইন ও সহানুভূতির একটা সমন্বয় হওয়া দরকার। আইনি কি প্রক্রিয়া আছে সেটা নিয়ে আগামী ৮ তারিখের বৈঠকে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী।

চাকরির খবরঃ স্বাস্থ্য দপ্তরে গ্রুপ- সি কর্মী নিয়োগ 

এদিন সোমবার নতুন নিয়োগ নিয়ে প্রধান সচিববের বোর্ড, সভাপতি বোর্ডের সচিব এবং স্কুল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যানকে নিয়ে বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী। পুজোর আগে প্রায় ২১ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে বলে জানান তিনি। তবে এই বিষয়ে শিক্ষক নেতা কিঙ্কর অধিকারী বলেন, বছরে কয়েকবার শিক্ষক নিয়োগের ঘোষণা আর শুনতে চাই না। এবার ঘোষণা ছেড়ে নিয়োগ প্রক্রিয়া বাস্তবে শুরু করুক রাজ্য সরকার। সব মিলিয়ে রাজ্যের চাকরি প্রার্থীদের মনে খুশির হাওয়া।