মাদ্রাসা শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি, উত্তরপত্রে অন্য কেউ কলম চালিয়েছে বলে অভিযোগ

মাদ্রাসা শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি

নিয়োগ সংক্রান্ত একাধিক দুর্নীতিতে তোলপাড় রাজ্য। এবার মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগের দুর্নীতির অভিযোগ উঠলো আদালতে। ২০২১ সালে ১৭ জানুয়ারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। আর ফল প্রকাশ হয় ২০২১ সালের ১১ আগস্ট। আব্দুল হামিদ নামে এক চাকরির প্রার্থীর অভিযোগ, বেআইনিভাবে তার উত্তরপত্র বাতিল করা হয়েছে। তাতে অন্য কেউ কলম চালিয়েছে। এই অভিযোগের ভিত্তিতে খাতা যাচাইয়ের নির্দেশ।

আব্দুল হামিদ জানান, বেআইনিভাবে তার উত্তরপত্র বাতিল করা হয়েছে। তথ্য জানার অধিকার আইনে আবেদন করে তিনি জানতে পেরেছেন, তার উত্তরপত্রে অন্য কেউ কলম চালিয়েছে। এদিন ২৬ আগস্ট শুক্রবার বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে আব্দুল হামিদের আইনজীবী ফেরদৌস শামীম দাবি করেন হামিদ যথাযথ উত্তর দিয়েছেন। কিন্তু তার উত্তরপত্রে অন্য কলমের কালি রয়েছে। হামিদ যে কলমে পরীক্ষা দিয়েছেন। সেটি আদালতে জমা দেন হামিদের আইনজীবী ফেরদৌস।

আরও পড়ুনঃ স্কুলে ক্লার্ক ও হেড ক্লার্ক নিয়োগ চলছে

এবিষয়ে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের দাবি ভুল থাকা উত্তরপত্র বাতিল হয়েছে। এরপর বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের নির্দেশে, এই মামলায় সেন্ট্রাল ফরেন্সিক ল্যাবরেটরী ডিরেক্টর এবং ফরেন্সিক ল্যাবরেটরিকে মামলায় যুক্ত করতে হবে ও পরীক্ষার উত্তরপত্র, ওএমআর শিট এবং তার কলম যে কলমে তিনি পরীক্ষা দিয়েছেন তা খতিয়ে দেখবে সেন্ট্রাল ফরেন্সিক ল্যাবরেটরী। অন্য কলমের কালি রয়েছে কিনা তা যাচাই করা হবে। ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই সমস্ত বিষয়ে প্রাথমিক রিপোর্ট জমা দিতে নির্দেশ বিচারপতির।

চাকরির খবরঃ মাধ্যমিক পাশে ১০ টি চাকরির খবর দেখে নিন