চাকরির আবেদন করতে এসে পুলিশের লাঠি খেতে হলো, পড়ুন বিস্তারিত

বেকারত্বের হার দিন দিন বেড়েই চলছে এ রাজ্যে। তারই এক হাতেনাতে প্রমাণ মিলল মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুর স্টেডিয়ামে। কয়েকদিন আগে মন্ত্রী হুমায়ুন কবির ও জেলার একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগে মুর্শিদাবাদ জেলার প্রায় ১২০০ বেকার যুবক যুবতীদের কর্মসংস্থানের কথা বলা হয়। সেই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী এদিন বহরমপুর স্টেডিয়ামে কর্মসংস্থানের জন্য ফর্ম জমা নেওয়া হয়।

এ রাজ্যের বেকারত্বের হার এতটাই ঊর্ধ্বে ১২০০ জন প্রার্থীর কর্মসংস্থানের কথা বলা সত্ত্বেও ফর্ম জমা দিতে আসে প্রায় লক্ষাধিক শিক্ষিত যুবক। ফলে ফর্ম জমা দেওয়ার লাইনে দেখা যায় প্রবল বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। লাইনের মধ্যে চলতে থাকে ধাক্কাধাক্কি। এমনকি পরিস্থিতি সামলাতে পুলিশ লাঠিচার্জ করতে বাধ্য হয়। এই পরিস্থিতি দেখে রাজ্যের বেকার যুবক যুবতীরা স্তম্ভিত। চাকরিপ্রার্থীদের মনে এখন একটাই প্রশ্ন, ‘পশ্চিমবঙ্গে কি তবে সত্যিই চাকরি নেই? চাকরির আবেদন করতে এসে যদি পুলিশের লাঠি খেতে হয় তাহলে আমরা কোথায় যাবো?’

আরও পড়ুনঃ
রাজ্যের পৌরসভায় কর্মী নিয়োগ
কলেজে গ্রূপ-ডি কর্মী নিয়োগ
রাজ্যে ব্লক ভলেন্টিয়ার নিয়োগ চলছে

ফর্ম জমা দিতে আসা যুবদের একজন বলেন, ‘সরকার আমাদের চাকরী দিক, লাগবে না লক্ষ্মীর ভাণ্ডার, ফ্রি রেশন। আমাদের মতো বেকার যুবদের চাকরি দিক আগে মমতার সরকার।” ‌আরেকজন বলেন, আমি আগে ভাবতাম যে পশ্চিমবঙ্গে বেকার সংখ্যা কম। কিন্তু এখানে এসে দেখছি অন্য পরিস্থিতি। ভুল ভেঙে গেল আমার। শুনেছি এখানে ১২০০ জন ছেলে নেওয়া হবে। কিন্তু এসে দেখি ১০ হাজারের বেশি ছেলে দাঁড়িয়ে রয়েছে। অনেক আশা নিয়ে এখানে এসেছি। আমি স্নাতক পাশ। কিন্তু এসেছি উচ্চ মাধ্যমিক পাশের চাকরির জন্য। প্রতিটি বেকার যুবক- যুবতীদের এখন স্লোগান ‘লক্ষীর ভান্ডার নয় চাকরি চাকরি চাই।’