“১৭ হাজার চাকরি রেডি হয়ে আছে” : মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

১৭ হাজার চাকরি রেডি

রাজ্যে ১৭ হাজার শূন্যপদে চাকরিতে নিয়োগ। ঘোষণা করলেন খোদ এরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  গত কয়েকদিন আগে তিন দিনের সফরে দুই বর্ধমান গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সরকারি কর্মসূচি নয়, ২৭ জুন সোমবার বর্ধমানের গোদার এলাকায় জনসভা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে কয়েকজন চাকরিপ্রার্থী প্ল্যাকার্ড হাতে চাকরির দাবিতে মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। যদিও পুলিশ দিয়ে তাদের দ্রুত সভা কক্ষ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। মুখ্যমন্ত্রীর তাঁর সভা শেষ করে ওই চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে দুজন চাকরি প্রার্থীর সঙ্গে কথা বলেন।

এদিন ২৮ জুন মঙ্গলবার আসানসোলের পোলো গ্রাউন্ডে এক সভায় বক্তব্য দিচ্ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেই মুহূর্তেই চাকরিপ্রার্থীদের আবার চাকরির দাবি করতে দেখা যায়। জনসভায় বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন SLST -এর চাকরি প্রার্থীরা। চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে ৫-৬ জন মহিলা প্ল্যাকার্ড হাতে চাকরিপ্রার্থীরা মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করেন। সভা চলাকালীন তারা উঠে পড়েন এবং বলেন ‘দিদি আমাদের চাকরি দিন’।

চাকরির খবরঃ রাজ্যের শিশু সুরক্ষা দপ্তরে কর্মী নিয়োগ

আর এই প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আমার ১৭ হাজার চাকরি রেডি হয়ে আছে।’ যারা বঞ্চিত হয়েছেন তাদের জন্য রাজ্য মন্ত্রিসভায় আরও ৫ হাজার চাকরির অনুমোদন করছি। কিন্তু আপনারাই আদালতে গেছেন। আদালতে আপনারা যেতে পারেন, সেখানে গিয়ে বলুন। আদালত আমাকে বলেছে ছাঁটাই করতে, আমি তো আদালতের কথা শুনবো। আদালত বলেছে এখন সব বন্ধ রাখতে তাই আমি চাইলে কিছু করতে পারিনা।

সবমিলিয়ে রাজ্যের চাকরিপ্রার্থীদের জন্য সুখবর আসতে চলেছে। সূত্রের খবর, সব ঠিক থাকলে অর্থাৎ আদালতের গেরোয় না জড়ালে খুব শীঘ্রই ১৭ হাজার শূন্যপদে নিয়োগ করতে পারে রাজ্য সরকার। তবে ঠিক কোন দপ্তরে এই শূন্যপদ রয়েছে তা সঠিকভাবে জানা যায়নি। তবে না জানা গেলে ক্ষতি নেই। রাজ্যের চাকরিপ্রার্থীরা জানাচ্ছেন, ‘যে দপ্তরে এই নিয়োগ হোক না কেন, দুর্নীতি মুক্ত নিয়োগ হলেই আমরা খুশি।’