প্রাইমারি টেট নিয়োগ নিয়ে হাইকোর্টে মামলা, তাহলে কি আটকে যাবে নিয়োগ?

প্রাইমারি টেট

পশ্চিমবঙ্গে প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টে মামলা। এদিন এই মামলা দায়ের করলেন টেট পাশ করা ১০ জন চাকরিপ্রার্থী। গত ২৯ শে সেপ্টেম্বর প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে আপত্তি রয়েছে এই চাকরিপ্রার্থীদের। পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরফ থেকে এদিন প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট বলা হয়, রাজ্যে প্রাথমিক স্কুলগুলিতে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত সহকারী শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। এক্ষেত্রে ডি.এল.এড -এর পাশাপাশি বি.এড ডিগ্ৰি যাদের রয়েছে তারাও আবেদন করতে পারবেন। মূলত এখানেই সমস্যা ওই ১০ জন চাকরি প্রার্থীর।

এদিন প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে শূন্যপদের কথা ঘোষণা করা হয়নি। এদিন রাজ্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ রাজ্যে টেট পরীক্ষা নেওয়ার কথা এবং বিপুল শূন্যপদে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের কথা ঘোষণা করেছিল। কিন্তু পরে অন্য একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বলা হয়, রাজ্যে মোট ১১ হাজার শূন্যপদে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ হবে। সেই সঙ্গে পূর্বের বিজ্ঞপ্তিতে এও জানানো হয়েছিল, ২০১৪ এবং ২০১৬ সালের টেট পাশ পরীক্ষার্থীরা শিক্ষক নিয়োগের জন্য আবেদন করতে পারবেন। আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হবে ২১ অক্টোবর থেকে।

আরও পড়ুনঃ
প্রাইমারি টেট প্র্যাকটিস সেট পিডিএফ ডাউনলোড

Primary TET Practice Set Book

কিন্তু তার পূর্বেই সেই বিজ্ঞপ্তির বিরুদ্ধে হাইকোর্টে মামলা হল। মূলত বি.এড ডিগ্ৰিধারী চাকরিপ্রার্থীরাও যে শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য আবেদন করতে পারবেন, এই অংশেই সমস্যা মামলাকারী চাকরিপ্রার্থীদের। কারণ, তাদের মতে বি.এড ডিগ্রিধারীরা এই নিয়োগে অংশগ্রহণ করতে পারেন না। তাদের বক্তব্য শিক্ষা দপ্তরের এই সম্পর্কিত আইনও রয়েছে। এই মামলা বিচারপতি হিরণ্ময় ভট্টাচার্যের এজলাসে গেছে। তিনি এদিন মন্তব্য করেন, পর্ষদের পক্ষে তো খুব সমস্যা। কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করলেই মামলা হচ্ছে। এই মামলার শুনানি হবে আগামী সোমবার। হাইকোর্টে মামলার ফলে এই নিয়োগ আটকে যাবে কি না তা সময় বলবে। আপাতত অপেক্ষা সোমবারের শুনানির।

আরও পড়ুনঃ বিএড বা ডিএলএড ভর্তি হলেই প্রাইমারি টেট পরীক্ষায় আবেদন করা যাবে