WB SLST Recruitment: শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে রাজ্য জুড়ে বিক্ষোভ

স্কুল সার্ভিস কমিশন শেষ ২০১৬ সালে স্কুল শিক্ষক নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল। তারপর প্রায় ৬ বছর স্কুল শিক্ষক নিয়োগের জন্য কোনোরূপ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়নি। শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে রাজ্য জুড়ে বিক্ষাভ ও ডেপুটেশন দিলো ওয়েস্ট বেঙ্গল SLST Candidates Association. এদিন ৫ জুলাই মঙ্গলবার স্কুল সার্ভিস কমিশনের হেড অফিস আচার্য ভবন সহ রাজ্যের বিভিন্ন জেলা জুড়ে বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করে রাজ্যের স্কুল সার্ভিস কমিশন শিক্ষক চাকরিপ্রার্থীরা।

দীর্ঘ সময়ে বহু শিক্ষক শিক্ষিকা অবসর গ্ৰহণ করেছেন। সেই সঙ্গে উৎসশ্রী প্রকল্পের আওতায় আবেদন করে বহু শিক্ষক স্কুল বদলি করেছেন। ফলে দেখা যাচ্ছে, জঙ্গলমহল এবং পাহাড় সহ সীমান্তবর্তী গ্রামীণ এলাকার স্কুলগুলিতে যথেষ্ট শিক্ষকের অভাবে পঠনপাঠন হচ্ছেই না। অন্যদিকে করোনার জন্য দীর্ঘ ছুটির কারনে শিক্ষা ব্যবস্থার আঁতে প্রবল আঘাত লেগেছে। শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা বাড়ছে। বি.এড ডিগ্রি করে বহু মেধাবী ছাত্রছাত্রীরা বাড়ী বসে আছেন। ধীরে ধীরে চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ বাড়ছে।

চাকরির খবরঃ রাজ্যের স্কুলে গ্রুপ- ডি কর্মী নিয়োগ

একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০২১ সালের অক্টোবর পর্যন্ত হিসাব অনুযায়ী রাজ্যে মোট ১ লক্ষ ১০ হাজার শিক্ষক শিক্ষিকার অভাব রয়েছে। বর্তমান সময়ে সংখ্যাটি আরও বেড়েছে। কিন্তু নিয়োগ হচ্ছে না। এমতাবস্থায় অবিলম্বে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের দাবী জানিয়ে এদিন স্কুল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যানের কাছে স্মারকলিপি জমা দেওয়ার অভিযান হয়। ওয়েস্ট বেঙ্গল এস.এল.এস.টি প্রার্থীরা অ্যাসোসিয়েশনের তরফ থেকে বিধাননগরে স্কুল সার্ভিস কমিশনের হেড অফিস আচার্য ভবনে এবং প্রতিটি জেলায় শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিক এবং জেলা শাসকের কাছে স্মারকলিপি জমা দেয় চাকরীপ্রার্থীরা। এদিন রাজ্যের ১৪ টি জেলায় স্মারকলিপি জমা দেওয়া হয়। বিধাননগরে হেড অফিসে স্মারকলিপি জমা দেওয়ার পর চাকরীপ্রার্থীদের একজন বলেন, স্কুল সার্ভিস কমিশন কোনোরূপ দায় নিতে অস্বীকার করছে। কমিশনের বক্তব্য, সরকার থেকে কোনোরূপ নির্দেশ না এলে তাদের কিছুই করার নাই।

চাকরির খবরঃ নবোদয় বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ

লক্ষাধিক পদ ফাঁকা রয়েছে রাজ্যে। যোগ্য চাকরীপ্রার্থীরা নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করার জন্য পরীক্ষায় বসতেই পারছে না। এমতাবস্থা যদি দীর্ঘদিন বজায় থাকে, তবে অ্যাসোসিয়েশন বড়সড় আন্দোলনের পথে নামতে পারে এমন পরিকল্পনা রয়েছে, বলে সূত্র মতে খবর। শেষ পর্যন্ত শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি কবে বেরোবে তার অপেক্ষায় রাজ্যের স্কুল সার্ভিস কমিশনের শিক্ষক চাকরিপ্রার্থীরা।