রাজ্যে কয়েক লক্ষ চাকরি, ২১ জুলাইয়ের সভা থেকে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

রাজ্যে কয়েক লক্ষ চাকরি

বাংলায় কয়েক লক্ষ চাকরির কথা ঘোষণা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দেশে ৪৫ শতাংশ বেকারত্ব বেড়েছে। আর পশ্চিমবঙ্গে ৪০ শতাংশ বেকারত্ব কমেছে, “আমি আগেই বলেছি, একদিকে কৃষি, অন্যদিকে শিল্প। দেউচা পাঁচামির কাজ শুরু হয়েছে। বাংলায় কয়েক লক্ষ চাকরি হবে। ২১ জুলাইয়ের সভামঞ্চে থেকে একথা ঘোষণা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিনের সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, তাজপুর পোর্ট হচ্ছে, এর মাধ্যমে ৫০ হাজার চাকরি হবে রাজ্যে। জঙ্গলমহলের ডানকুনি থেকে পানাগড়, বাঁকুড়া হয়ে রঘুনাথপুরে ৭২ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করা হচ্ছে। এখনও কয়েক লক্ষ চাকরি হবে। এইসব নিয়োগ সম্পূর্ণ হলে রাজ্যের বেকারত্ব দূর হবে। রাজ্যে ডেডিকেটেড ফ্রেট করিডর হচ্ছে। MSME -তে দেড় কোটি চাকরি করছে। ইমিমধ্যেই রাজ্যে ১৭ হাজার শিক্ষকের চাকরি রেডি রয়েছে। এই সমস্ত শুন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ করতে চায় রাজ্য সরকার। কিন্তু আদালতে কেস চলছে বলে নিয়োগ করা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুনঃ রাজ্যের কলেজে ক্লার্ক নিয়োগ

আমরা চাই চাকরি হোক, বিরোধীরা চায় চাকরি যাক। রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ড, UPSC, সিভিল এভিয়েশন খালি বলছে বাংলার লোককে চাকরি দেওয়া যাবে না? আলবাত দেব। একদিকে বন্ধ করবে, অন্যদিকে চালু করব। আমি জানি এদের কী করতে হয়। ‘সিপিএমের আমলে চাকরি হয়েছিল, এক একটা চাকরি ১০ থেকে ১৫ লক্ষ টাকায় বিক্রি হয়েছে।’ এদিনের সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে নিয়োগ নিয়ে এইসব গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করেন, এবং বেকারতত্ব নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমন করতেও ছাড়েননি। তবে এখন দেখার পালা কবে এই সমস্ত দপ্তরে নিয়োগ করবে রাজ্য সরকার। সেই দিকে তাকিয়ে বাংলার বেকার যুব সমাজ।