প্রাইমারি টেট ফলাফল প্রকাশের দাবিতে বিক্ষোভ, অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক

প্রাইমারি টেট ফলাফল প্রকাশের দাবিতে বিক্ষোভ

দ্রুত ফল প্রকাশের দাবিতে বিক্ষোভ রাজ্যের চাকরিপ্রার্থীদের। কথা ছিল পুজোর আগে 2017 সালের প্রাইমারি টেট পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করবে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। সেইমতো লক্ষাধিক পরীক্ষার্থী অতি আগ্রহের সাথে ফলাফলের আশায় দিন গুনছিলেন। কিন্তু পুজো এসে চলে গেলেও পরীক্ষার ফলাফল সম্পর্কে কোনো খবর জানা যায়নি। এমতাবস্থায়,আর অপেক্ষা করতে না পেরে রাস্তায় আন্দোলনে নামলেন হবু শিক্ষকরা। 2017 প্রাথমিক টেট পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের দাবিতে রবিবার ফালকাটায় বিক্ষোভ দেখালো আলিপুরদুয়ার প্রাইমারি টেট পরীক্ষার্থীর মঞ্চ।

প্রসঙ্গত 2017 সালের প্রাইমারি টেট পরীক্ষা যেটা চলতি বছরের 31 জানুয়ারি হয়েছিল। করোনা পরিস্থিতিতে সেই পরীক্ষা দিয়েছিলেন প্রায় 2.5 লাখ পরীক্ষার্থীl নিয়ম অনুযায়ী এই পরীক্ষায় কেবলমাত্র ডি.এল.এড প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত পরীক্ষার্থীরা বসেছিলেন। তবে কবে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হবে সেই নিয়ে ধন্দ ছিল। তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্নে সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, পুজোর আগেই 10 হাজার 500 প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ করা হবেl আগামী বছর মার্চের মধ্যে প্রাথমিক স্কুলে আরও 7 হাজার 500 শিক্ষক চাকরি পাবেনl তারপর পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরফ থেকে জানানো হয়, মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা মত পুজোর আগেই 2017 সালের প্রাথমিক টেট এর পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে। শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে ফল প্রকাশের আগেই পর্ষদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে উত্তরপত্র। কথা মতো গত 15 আগস্ট পর্ষদের ওয়েবসাইটে উত্তরপত্র প্রকাশিত হয়। উত্তরপত্র প্রকাশ হলেও ফলাফলের দেখা নেই।

আরও পড়ুনঃ
প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে বড়সড় রদবদল
শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে ধর্ণায় চাকরিপ্রার্থীরা

প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী পুজোর আগে ফল প্রকাশের আশায় প্রায় 2.5 লাখ পরীক্ষার্থী সময়ের প্রহর গুনে চলেছেন। অন্যদিকে পুজোর পরেও পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে পর্ষদের তরফ থেকে কোনোরকম খবরা- খবর জানানো হয়নি। চাকরিপ্রার্থীদের দাবি এই প্রাইমারি পরীক্ষার ফলাফলের উপর ভরসা করে রয়েছেন রাজ্যের লক্ষ লক্ষ পড়ুয়া, ফলাফল প্রকাশ না হওয়ায় তাদের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে রয়েছে। তাই অতিসত্বর ফল প্রকাশের দাবি নিয়ে কিছু চাকরিপ্রার্থী রবিবার আলিপুরদুয়ার প্রাইমারি টেট সংগঠনের তরফ থেকে রাস্তায় নামেন। এদিন সংগঠনের তরফ থেকে অবিলম্বে ফল প্রকাশ করা না হলে জেলায় বৃহত্তর আন্দোলন করা হবে বলে জানানো হয়।