বাংলা ভাষায় পড়া যাবে ডাক্তারি- ইঞ্জিনিয়ারিং, যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত গ্রহণের পথে কেন্দ্রীয় সরকার

বাংলা ভাষায় পড়া যাবে ডাক্তারি- ইঞ্জিনিয়ারিং

২০২০-এর নতুন জাতীয় শিক্ষানীতিতে মাতৃভাষায় শিক্ষার উপর জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে‌। ইংরেজি বাদে দেশের অন্যান্য আঞ্চলিক ভাষায় শিক্ষা বিস্তারে অগ্রণী ভূমিকা নিচ্ছে কেন্দ্র সরকার। তারই প্রতিফলনে সম্প্রতি দেশের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ হিন্দি ভাষায় ডাক্তারির বই প্রকাশ করলেন। এই হিন্দি ভাষার বই পড়ানো হবে মধ্যপ্রদেশের প্রথম বর্ষের ডাক্তারি পড়ুয়াদের। বাংলা সহ ভারতের অষ্টম তফসিলে থাকা সমস্ত ভাষায় ডাক্তার এবং ইঞ্জিনিয়ারিং-এর বইপত্র ধীরে ধীরে প্রকাশ করা হবে এবং তাতেই পাঠক্রম চলবে দেশে। সম্প্রতি এই বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ছাড়াও মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান এবং রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী বিশ্বাস কৈলাস সারং।

এদিনের অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন, আগামী দিনে যখনই ইতিহাস লেখা হবে, আজকের দিনটি স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। আজ দেশের শিক্ষাক্ষেত্রে এক অতি গুরুত্বপূর্ণ দিন। “ব্রেন ড্রেন”  থেকে “ব্রেন গেম” এ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

আরও পড়ুনঃ
শিশু বিকাশ ও পেডাগজি প্র্যাকটিস সেট
পরিবেশ বিদ্যা প্র্যাকটিস সেট
বাংলা প্র্যাকটিস সেট

মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাত সিং চৌহান বলেন আজ দেশের দরিদ্র থেকে মধ্যবিত্ত সকল স্তরের যুবক যুবতীদের জন্য এক নতুন ভোরের দিগন্ত খুলে দিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। বহু মেধাবী ছাত্র-ছাত্রী ইংরেজির ভয়ে ডাক্তারি পড়ার কথা চিন্তাও করেন না। এবার ধারণা বদলাচ্ছে; যে মাতৃভাষায় ডাক্তারি বা ইঞ্জিনিয়ারিং করা যায় না। তামিল, তেলেগু, মালায়ালাম, গুজরাটি, হিন্দি থেকে শুরু করে বাংলা পর্যন্ত সমস্ত মাতৃভাষায় শিক্ষাদানের যে মিশন প্রধানমন্ত্রী শুরু করেছেন তা এক কথায় অবিস্মরণীয়। প্রধানমন্ত্রী দৃষ্টিভঙ্গি অনুসরণ করে মোট বারোটি ভাষায় বর্তমানে প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। অতি শীঘ্রই বাংলায় পাঠরত ডাক্তারির ছাত্রছাত্রীরা  মাতৃভাষায় অর্থাৎ বাংলা ভাষায় ডাক্তারির পড়াশোনা করতে পারবে।