প্রাইমারি টেটে অংশগ্রহণের সুযোগ পেলেন বিএড স্পেশালরা, হাইকোর্টের অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশ

প্রাইমারি টেটে অংশগ্রহণের সুযোগ পেলেন বিএড স্পেশালরা

এবার প্রাইমারি টেট পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ পেলেন বি-এড স্পেশাল ক্যান্ডিডেটরা। এদিন শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের তরফে এহেন অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশ দেওয়া হয়। জানানো হয় আসন্ন টেট পরীক্ষার জন্য যে সমস্ত বি-এড স্পেশাল ক্যান্ডিডেটরা ফর্ম ফিল আপ করেছিলেন তাঁদের সবাইকেই পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড দিতে হবে।

বি-এড স্পেশাল উত্তীর্ণ প্রার্থী বলতে তাঁদের বোঝায় যারা স্পেশাল স্টুডেন্ট বা বিশেষভাবে সক্ষম পড়ুয়াদের পড়ানোর জন্য আলাদাভাবে প্রশিক্ষিত। রাজ্যে এমন অনেক বিদ্যালয় রয়েছে যেখানে এই বিশেষভাবে সক্ষম পড়ুয়ারা পড়াশোনা করেন। তাঁদের পঠনপাঠনের জন্য বি-এড স্পেশাল প্রার্থীদের নিয়োগ করা হয়। ফলে এই প্রার্থীদের সংখ্যা স্কুলগুলিতে বৃদ্ধি পেলে স্পেশাল স্টুডেন্টদের পড়াশোনার আগ্রহ ও সুবিধা আরও বৃদ্ধি পাবে।

Primary TET Practice Set: Download Now

সাধারণত অন্যান্য রাজ্যে এই বি-এড স্পেশাল প্রার্থীদের বি-এড দের সাথেই এক সারিতে রাখা হয়। তবে এ রাজ্যে আগামী ১১ই ডিসেম্বর আয়োজিত হতে চলা প্রাইমারি টেট পরীক্ষার আবেদন প্রক্রিয়ায় বি-এড স্পেশাল ক্যান্ডিডেটদের জন্য কোনোও অপশন রাখা হয়নি। ফলে এই প্রার্থীদের বি-এড হিসেবেই আবেদন করতে হয়েছে ও ফর্ম ফিল আপ করতে হয়েছে। অন্যদিকে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরফে জানা গিয়েছিল চলতি বছরের টেট পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন না এই বি-এড স্পেশাল প্রার্থীরা।

এরপর সংশ্লিষ্ট বিষয়টির প্রতিবাদে আদালতে দ্বারস্থ হন বেশ কিছু প্রার্থী। বিষয়টি নিয়ে মামলাও চলে। তাঁদের দাবি, বি-এড রা যদি পরীক্ষায় বসতে পারেন তবে বি-এড স্পেশালরা নয় কেন? একই সাথে তাঁরা এও দাবি করেন, অন্যান্য রাজ্যে যেখানে বি-এড ও বি-এড স্পেশালদের একই সারিতে রাখা হয় সেখানে পশ্চিমবঙ্গে তার ব্যতিক্রম কেন! এরপরই শুক্রবার হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় এই মর্মে অন্তর্বর্তী নির্দেশ দেন যে, বি-এড স্পেশাল ক্যান্ডিডেটরাও টেট পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। এবং যাঁরা ফর্ম ফিল আপ করেছিলেন তাঁদের অবিলম্বে অ্যাডমিট কার্ড দিতে হবে। আগামী ৬ই ডিসেম্বর এই মামলার পরবর্তী শুনানি।