‘বারবার প্রতিশ্রুতি, এবার হোক ফলশ্রুতি’- এই দাবিতে ধর্ণায় চাকরিপ্রার্থীরা

এই দাবিতে ধর্ণায় চাকরিপ্রার্থীরা

‘বারবার প্রতিশ্রুতি, অন্তত এবার হোক ফলশ্রুতি’- এইরকমই কিছু দাবি জানিয়ে কলকাতার গান্ধী মূর্তির পাদদেশে তৃতীয়বারের জন্য আবার অনশনে নামলেন রাজ্যের স্কুল শিক্ষক চাকরিপ্রার্থীরা। রবিবার হাইকোর্টের অনুমতি নিয়ে কলকাতার মেয়ো রোডে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে আন্দোলন শুরু করলেন চাকরিপ্রার্থীরা। ২০১৬ সালের এসএসসি পরীক্ষায় তারা সফল হয়েছিলেন। মেধাতালিকায় থাকার পরও চাকরি মেলেনি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আশ্বাসের পরও কোনো কাজ হয়নি।

এরপরেই কলকাতার মেয়ো রোডে তৃতীয় দফার অবস্থান- বিক্ষোভ। আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর উপর পূর্ণ আস্থা রেখেই আবার আমরা রাস্তায় নামলাম, আশা রাখি তিনি খুব দ্রুত আমাদের আবেদন শুনবেন এবং আমাদের দাবির যথাযথ মর্যাদা দিয়ে শিক্ষক হিসেবে স্কুলে নিয়োগের ব্যবস্থা করবেন।

প্রসঙ্গত ২০১৮- ১৯ সালে কিছু চাকরিপ্রার্থীদের নিয়োগ করার পর নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করে দিয়েছিল স্কুল সার্ভিস কমিশন। আন্দোলনকারীদের দাবি, এই নিয়ে তিনবার তারা রাস্তায় নামলেন। শুধু তাই নয় একাধিকবার শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর বাড়ির সামনেই প্রার্থীদের একাংশ গিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। ওই আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১০ আগস্ট শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু ও এসএসসি চেয়ারম্যানের সাথে একটি বৈঠক হয়। বৈঠকের পর থেকে ৪০ দিনের মধ্যে বঞ্চিত প্রার্থীদের নিয়োগের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। কিন্তু সেই কথা রাখা হয়নি বলে অভিযোগ আন্দোলনকারীদের।

আরও পড়ুনঃ
মাধ্যমিক পাশে ক্লার্ক নিয়োগ চলছে
৭ হাজার শূন্যপদে ব্যাংক ক্লার্ক নিয়োগ
রাজ্যে কবে স্কুল খুলবে, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

এপ্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য, করোনা ও নির্বাচনের জন্য নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে দেরি হয়েছে, তিনি আরও জানান, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চাকরিপ্রার্থীদের প্রতি সহানুভূতিশীল। পাশাপাশি সরকারও বিষয়টি সহানুভূতির সাথেই দেখছে। আইনি প্রক্রিয়া খতিয়ে দেখে এই বিষয়ে পদক্ষেপ করবে স্কুল সার্ভিস কমিশন। আন্দোলনকারীদের দাবি, মুখ্যমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি ও আশ্বাসের পরও নিয়োগ অধরা, তাই তারা তৃতীয়বারের জন্য অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হয়েছেন।