প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের স্থগিতাদেশ কলকাতা হাইকোর্টের! চরম অন্ধকারে সফল প্রার্থীরা

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের স্থগিতাদেশ কলকাতা হাইকোর্টের

রাজ্যে 16 হাজার 500 প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে স্থগিতাদেশ দিল Kolkata High Court। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অনিয়মের অভিযোগে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছিলেন বেশ কয়েকজন পরীক্ষার্থী। 2014 সালের প্রাইমারি টেট নিয়োগে অস্বচ্ছতার অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছেন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ।

গত 15 ফেব্রুয়ারি মধ্যরাত নাগাদ প্রাইমারি টেট পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ (WBBPE)। কিন্তু এই ফলাফল নিয়ে তৈরি হয়েছে জটিলতা। চাকরিপ্রার্থীদের অভিযোগ, ফলাফলে পূর্ণাঙ্গ মেধাতালিকা প্রকাশ করা হয়নি। শুধুমাত্র রোল নম্বর দিয়ে ফলাফল জানতে পারছেন চাকরিপ্রার্থীরা। অনেক ক্ষেত্রে রোল নম্বর দিয়ে ফলাফল দেখতে গেলে অনুত্তীর্ণ দেখালেও, সংশ্লিষ্ট চাকরিপ্রার্থীর মোবাইল নম্বর কিংবা ইমেইল আইডিতে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার মেসেজ আসতে দেখা গেছে। সব মিলিয়ে রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অস্বচ্ছতার অভিযোগের ভিত্তিতে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের বেঞ্চ নিয়োগ প্রক্রিয়ার ওপর স্থগিতাদেশ জারি করেছেন। হাইকোর্টের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এই মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত নিয়োগ প্রক্রিয়ার ওপর স্থগিতাদেশ জারি থাকবে।

আরও পড়ুন: প্রাইমারি টেট রেজাল্ট চেক করুন

কলকাতা হাইকোর্টের এই নির্দেশ জারি হওয়ার পরে চাকরি প্রার্থীরা সঙ্কটের মুখে। এই মুহূর্তে রাজ্যজুড়ে 15 হাজার 284 জন চাকরি প্রার্থীর ভবিষ্যৎ চরম অন্ধকারে। পাশাপাশি আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হতে পারে। আর তারপরই নির্বাচনী বিধি নিষেধ লাগু হবে। ফলে রাজ্যজুড়ে সফল চাকরিপ্রার্থীদের কপালে চিন্তার ভাঁজ।

প্রসঙ্গত, গত 31 জানুয়ারি প্রাইমারি টেটের যে পরীক্ষা নিয়েছিল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ, তার ফলাফল কবে বেরোবে এখনো স্পষ্ট নয়। তবে সূত্রের খবর, ভোটের আগে ফলাফল প্রকাশ হওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের সমস্ত আপডেট সবার প্রথমে পেতে ExamBangla.com -এর পাতায় চোখ রাখুন।